1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : leftkisslejour :
   
চাটমোহর,পাবনা সোমবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২৩, ০২:১০ অপরাহ্ন

বিপিএল শুরু আজ

স্পোর্টস ডেস্ক
  • আপডেট সময় : শুক্রবার, ৬ জানুয়ারি, ২০২৩ , ১.৩৫ অপরাহ্ণ
  • ৫৫ বার পড়া হয়েছে
আজ বিপিএল

২০১২ সালে শুরু। এরপর একে একে ৮টি আসর অনুষ্ঠিত হয়েছে। তবে উন্নতি হয়নি মানের। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে এসেছে যে এমনকি বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) টি২০ আসরে বর্তমানে থাকে না আম্পায়ারের ডিসিশন রিভিউ সিস্টেম (ডিআরএস) প্রযুক্তিও। এমন দায়সারা গোছের বিপিএল মাঠে গড়াচ্ছে আজ। উদ্বোধনী ম্যাচে বেলা আড়াইটার সময় মাশরাফি বিন মর্তুজার নেতৃত্বে সিলেট স্ট্রাইকার্স মুখোমুখি হবে শুভাগত হোম চৌধুরীর নেতৃত্বে থাকা চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের।

আর সন্ধ্যা সোয়া ৭টায় বর্তমান চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স খেলবে এক মৌসুম পর আবার বিপিএলে ফেরা রংপুর রাইডার্সের। দুটি ম্যাচই অনুষ্ঠিত হবে মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। ৪ অধিনায়কই শিরোপা জেতার প্রত্যয়ে জয় দিয়ে শুরুর আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।
বিপিএলে কোনোবারেই পরিপূর্ণ প্রযুক্তির ব্যবহার দেখা যায়নি। তবে গত আসর এবং এবার প্রযুক্তির কোনো ছোঁয়াই থাকবে না বিপিএলে। পুরনো আমলের স্লোমোশন ব্যবহার করে রিপ্লে দেখে ক্যাচ, রান আউট কিংবা এলবিডব্লিউ এর ক্ষেত্রে সংশয়পূর্ণ সিদ্ধান্তগুলো বিশ্লেষণ করা হবে। সেটিকে বলা হচ্ছে অল্টারনেটিভ ডিসিশন রিভিউ সিস্টেম (এডিআরএস)। হাস্যকর এই ডিজিটাল পদ্ধতি গত আসরেও দেখা গেছে।

 

এছাড়া একেবারে শেষ মুহূর্তে এবারের বিপিএল টাইটেল স্পন্সর পেয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। আর ব্রডকাস্টিংয়ের ক্ষেত্রেও কোনো ভালো প্রতিষ্ঠানকে পায়নি তারা। নিয়মিত খেলা প্রচার করা কোন চ্যানেল টিভি স্বত্ত্ব নেয়নি। সবমিলিয়ে লেজে-গোবড়ে পরিস্থিতির মধ্যেই এবারের বিপিএল মাঠে গড়াচ্ছে আজ। আর সেজন্য কিছুদিন আগেই এ নিয়ে নানা অভিযোগ করে তীব্র সমালোচনায় মুখর হয়েছেন বিশ^সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।

বৃহস্পতিবার ট্রফি উন্মোচনে এসে সিলেট অধিনায়ক মাশরাফিও তাকে সমর্থন জানিয়ে এতসব অসঙ্গতি নিয়ে কণ্ঠে আক্ষেপ ঝরিয়েছেন। দীর্ঘ ৮ মাস ৯ দিন পর আবার ক্রিকেট খেলতে নামবেন মাশরাফি। তিনি এ বছর ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ (ডিপিএল) আসরে ২৮ এপ্রিল সর্বশেষ ম্যাচ খেলার পর পুরোপুরি মাঠের বাইরে ছিলেন। বিপিএল উপলক্ষে আবার মাঠে ফিরে কয়েকদিন অনুশীলন করেছেন। দলকে নিয়ে বেশ আশবাদী মাশরাফি নিজেকে নিয়ে বলেছেন, ‘লম্বা সময় ম্যাচও খেলিনি, মানে ম্যাচ থেকে তৈরি হতে হবে। মানসিকভাবে ঠিক আছি। কিন্তু এমন তো না যে মানসিকভাবে ঠিক থাকলে স্কিলও ঠিক থাকবে।
সিলেটে এবার কোচ এক সময় তারই সতীর্থ রাজিন সালেহ। এছাড়া ব্যাটিং পরামর্শক হিসেবে থাকা তুষার ইমরানের সঙ্গেও খেলেছেন মাশরাফি। তারাই এখন দলের কোচ। এ নিয়ে মাশরাফি বলেছেন, ‘তুষার, রাজিন ভাই এরা কিন্তু আধুনিক ক্রিকেট খেলেছে। এখানে ব্যাটিংয়ে অনেক ক্যারিশমা করার ব্যাপার আছে, বোলিংয়েও একই জিনিস আছে। তো আমাদের যারা স্থানীয় কোচ আছে, বিশেষ করে আমাদের দলে এটা যেন তারা ইতিবাচকভাবে নেয় এবং তারা নিয়েছে। আমি নিশ্চিত যে এই দেড় মাসে তারা অনেক অভিজ্ঞতা নিতে পারবে।

সিলেটের হয়ে খেলবেন অভিজ্ঞ মুশফিকুর রহিম, তরুণ আকবর আলী, অভিজ্ঞ রুবেল হোসেন ও উদীয়মান নাজমুল হোসেন শান্তরা। দল নিয়ে তাই আশাবাদী মাশরাফি। তিনি বলেছেন, ‘বেশ ভালো ও সংঘবদ্ধ মনে হচ্ছে। যারা কোচিং স্টাফে আছে, ক্রিকেটার সবার ভেতরে, কম্বিনেশনটাও ভালো। মাঠে কেমন করবে সেটা তো বলা কঠিন। ফ্র্যাঞ্চাইজি চায় ভালো কিছু করতে। সব দলই চায় চ্যাম্পিয়ন হতে। আমরাও অবশ্য তার ব্যতিক্রম কিছু না। প্রতিপক্ষ চট্টগ্রামের অধিনায়ক অভিজ্ঞ অলরাউন্ডার শুভাগত হোম।

তার অধীনে দলটিতে আছেন বাঁহাতি আফিফ হোসেন ধ্রুব, অভিজ্ঞ আলআমিন হোসেন ও ফরহাদ রেজা এবং উদীয়মান বাঁহাতি পেস অলরাউন্ডার মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী নিপুণ। এই দলটিকে নিয়ে শুভাগত বলেছেন, ‘সবার যে লক্ষ্য, আমারও সেই লক্ষ্য। আমরা চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্যই মাঠে নামব।’ সন্ধ্যায় গত আসরের চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা মাঠে নামবে। এবারও দলটির কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিন আর অধিনায়ক অভিজ্ঞ ইমরুল কায়েস। সালাউদ্দিন-ইমরুল জুটি এই আসরেও শিরোপার লক্ষ্যেই মাঠে নামবে।

দলটিতে বর্তমান বিশ্বের  অন্যতম সেরা ইনফর্ম ব্যাটার লিটন কুমার দাস আছেন। এছাড়াও আছেন টি২০ ক্রিকেটে অন্যতম সেরা বোলার, বাঁহাতি পেসার মুস্তাফিজুর রহমান। অলরাউন্ডার মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতদের নিয়ে দারুণ গোছানো দল কুমিল্লার দৃষ্টি শিরোপায়। ইমরুল এ বিষয়ে বলেছেন, কুমিল্লা সবসময় চ্যাম্পিয়ন হওয়ার মতো দল করে। এ বছরও একই পরিকল্পনা। চেষ্টা করব এ বছরও শিরোপা ধরে রাখার জন্য।তবে গত আসরে না খেলা রংপুর রাইডার্স আবার ফিরেছে।

এবার দলটির নেতৃত্বে টি২০ ক্রিকেটে উইকেটরক্ষক-ব্যাটার হিসেবে ঘরোয়া আসরগুলোয় দুর্দান্ত নুরুল হাসান সোহান আছেন নেতৃত্বে। তার অধীনে দলটিতে আছেন এক ঝাঁক উদীয়মান তরুণ ক্রিকেটার। পারভেজ হোসেন ইমন, হাসান মাহমুদ, অলরাউন্ডার শেখ মেহেদি হাসান, নাইম শেখ ও ঘরোয়া টি২০তে নিয়মিত পারফর্ম করা টপঅর্ডার রনি তালুকদার। তাই দলকে নিয়ে আশাবাদী সোহান বলেছেন, ‘অবশ্যই আশা থাকবে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার। ট্রফি এখনো ধরিনি। যদি চ্যাম্পিয়ন হই তাহলেই ধরব। আমাদের দল তরুণ, উদ্যমী। দলে অনেক অলরাউন্ডার আছে। মাঠে একশ’ ভাগ দিলে ইনশাআল্লাহ ভালো কিছু হবে।

এই সংবাদটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি। সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২২-২০২৩ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য মন্ত্রনালয়ের বিধি মোতাবেক নিবন্ধনের জন্য আবেদিত।
error: Content is protected !!